https://public-voice24.com/wp-content/uploads/2022/03/favicon.ico-300x300.png
ঢাকাবৃহস্পতিবার , ২রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

৪১৬ বস্তা সার মজুত অধিক মুনাফার আশায়, ব্যবসায়ী কারাগারে

পাবলিক ভয়েস
মার্চ ৩, ২০২২ ৬:০৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

বগুড়ার আদমদীঘির সান্তাহারে একটি দোকান থেকে অবৈধভাবে মজুত ৪১৬ বস্তা ইউরিয়াসহ বিভিন্ন রাসায়নিক সার জব্দ করা হয়েছে। আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রাবণী রায়ের নেতৃত্বে বুধবার রাতে সান্দিড়া গ্রামে মেসার্স জুঁই ট্রেডাসে অভিযান চালানো হয়।

অভিযানের সময় দোকানের মালিক সুমন ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মিঠু চন্দ্র অধিকারী তার বিরুদ্ধে আদমদীঘি থানায় মামলা করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সুমন ইসলাম আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহার ইউনিয়নের সান্দিড়া মৎস্যজীবীপাড়ায় তার মেসার্স জুঁই ট্রেডার্সে কীটনাশক ও রাসায়নিক সারের ব্যবসা করেন। তিনি ব্যবসার আড়ালে প্রশাসনকে ফাঁকি দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে রাসায়নিক সার মজুত ও অধিক দামে বিক্রি করে আসছেন। গোপনে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রাবণী রায়ের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত বুধবার রাতে ওই দোকানে অভিযান চালান। এ সময় দোকানের গুদামে অবৈধভাবে মজুত করা ৪১৬ বস্তা, ইউরিয়া, ফসফেট ও ড্যাপ সার জব্দ করা হয়। সার মজুতের ব্যাপারে সদুত্তর দিতে ব্যর্থ হওয়ায় সুমন ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়।

অভিযান চলাকালে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মিঠু চন্দ্র অধিকারী, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা কামরুল আহসান কাঞ্চন, আদমদিঘি থানার এসআই আবু হাসান উপস্থিত ছিলেন।

আদমদীঘি থানার ওসি জালাল উদ্দিন বলেন, ওই ব্যবসায়ী অধিক মুনাফার আশায় অবৈধভাবে সারগুলো মজুত করেছিলেন। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মিঠু চন্দ্র অধিকারী থানায় ব্যবসায়ী সুমন ইসলামের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেছেন। বৃহস্পতিবার ওই ব্যবসায়ীকে আদালতের মাধ্যমে বগুড়া কারাগারে পাঠানো হয়েছে।