https://public-voice24.com/wp-content/uploads/2022/03/favicon.ico-300x300.png
ঢাকাশুক্রবার , ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

প্রতিবন্ধীর ঘর আগুনে পুড়লো, পুড়ে মরলো অনুদানে পাওয়া গরুটাও

পাবলিক ভয়েস
মার্চ ৭, ২০২২ ৫:৫১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

কুড়িগ্রামের উলিপুরের ধরণীবাড়ী ইউনিয়নে মোফাজ্জল হোসেন মোফা নামে এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী দিনমজুরের ঘর আগুনে পুড়ে গেছে। এ সময় তার প্রতিবন্ধী মেয়ের অনুদানে পাওয়া একটি গরু গোয়ালে থাকা অবস্থায় পুড়ে মারা যায়। সোমবার (৭ মার্চ) দুপুরে উপজেলার ধরণীবাড়ী ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কিসামত মালতিবাড়ী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে উলিপুর ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। উলিপুর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার সাইফুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়রা জানান, সোমবার দুপুরে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী মোফা ভ্যানে করে পাটখড়ি বিক্রি করতে যান। এ সময় বাড়িতে তার ছেলে-মেয়েরা ছিল। দুপুরে হঠাৎ আগুন লাগলে মুহূর্তেই মোফা ও তার বিধবা বোন ফাতেমার তিনটি ঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। স্থানীয়রা এগিয়ে গিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করলেও ঘরের সব জিনিসপত্র এবং প্রতিবন্ধী মেয়ে সুফিয়ার একটি গরু পুড়ে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

ভুক্তভোগী নোপার প্রতিবেশী রহিমা ও রজুফা জানান, মোফার সাত ছেলে-মেয়ে। এর মধ্যে এক সন্তান প্রতিবন্ধী। মোফা প্রতিবন্ধী হওয়ায় স্ত্রী ছেড়ে গেছেন। কষ্ট করে খাবার জোটাতে হয়। তার বোন ফাতেমা অন্যের বাড়িতে কাজ করে জীবিকা চালান। প্রতিবন্ধী হিসেবে মোফার মেয়ে এনজিও থেকে অনুদান হিসেবে একটি গরু পেয়েছিল, তাও পুড়ে মরলো। আগুনে ঘরবাড়ি পুড়ে যাওয়ার সময় তার সন্তানরা আহাজারি করে কাঁদছিল।

রজুফা বলেন, ‘লোকটা বুদ্ধি প্রতিবন্ধী। বোনটা বিধবা। ঘর, জিনিসপত্র কিছুই থাকলো না। ছেলে-মেয়ে নিয়ে কোথায় থাকবে।’

ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার সাইফুর রহমান বলেন, ‘তিনটি ঘরের টিন বাদে সবই পুড়ে গেছে। তাৎক্ষণিকভাবে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাতের কারণ জানা যায়নি।’

উলিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বিপুল কুমার বলেন, ‘আমি আগুনের ঘটনা শুনেছি। ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যাচ্ছি। ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা করা হবে।’