https://public-voice24.com/wp-content/uploads/2022/03/favicon.ico-300x300.png
ঢাকামঙ্গলবার , ৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

উদ্যোক্তা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলো ৫ হাজার তরুণ নিয়ে

পাবলিক ভয়েস
মার্চ ১২, ২০২২ ৫:১৩ অপরাহ্ণ
Link Copied!

‘চাকরি করবো না চাকরি দেব’ স্লোগানকে সামনে রেখে অনুষ্ঠিত হলো ‘উদ্যোক্তা মহাসম্মেলন ২০২২’। ১৫৩১ দিন ধরে টানা চলা প্রশিক্ষণ প্লাটফর্ম ‘নিজের বলার মত একটি গল্প ফাউন্ডেশন’র আয়োজনে ১২ মার্চ মিরপুর ইনডোর স্টেডিয়ামে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ইকবাল বাহার জাহিদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

জানা যায়, ৬৪টি জেলা ও ১৮টি দেশ থেকে ৫ হাজার তরুণ উদ্যোক্তা এ সম্মেলনে অংশ নিয়েছেন। তার মধ্যে ১২৫ জন উদ্যোক্তার পণ্য প্রদর্শন হয়েছে। এ ছাড়া ৬ লাখের বেশি তরুণ-তরুণীকে ১৭টি ব্যাচে টানা ৯০ দিন করে বিনা মূল্যে উদ্যোক্তা বিষয়ক প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে এ প্লাটফর্ম থেকে। আয়োজনে বিভিন্ন দেশ ও জেলার উদ্যোক্তাদের কয়েকটি ক্যাটাগরিতে পুরস্কৃত করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, ‘আমি অভিভূত। বাংলাদেশের উদ্যোক্তাদের এই এগিয়ে যাওয়ার গল্প আমাদের সবাইকে বেশ অনুপ্রাণিত করছে। আমি এই ফাউন্ডেশনের সাথে সব সময় থাকবো।’

তিনি বলেন, ‘তরুণরাই দেশের সবচেয়ে বড় শক্তি। আপনাদের হাত ধরেই এগিয়ে যাচ্ছে দেশ। আমরা যখন সরকারি সফরে বিদেশ যাই; তখন বিভিন্ন দেশের অফিসিয়ালরা আমাদের দেশের তরুণদের বেশ প্রশংসা করে।তারা বলে, আপনাদের কাজের জন্যই বাংলাদেশ মাথা উঁচু করে বিশ্বমঞ্চে দাঁড়িয়ে আছে।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তরুণদের নিয়ে কাজ করতে বেশ পছন্দ করেন। বিশেষত উদ্যোক্তাদের জন্য তিনি সব সময়ই অনেক বেশি উদার। নতুন নতুন উদ্যোগের মাধ্যমে কীভাবে তরুণদের আরও ব্যবসাবান্ধব করা যায়, তা নিয়ে তিনি প্রতিনিয়ত নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছেন।’

আয়োজনে বিশেষ অতিথি হিসেবে সেশন নেন এসোসিওর (বাংলাদেশ) ফার্স্ট চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ্ কাফি, এসবি টেক অ্যান্ড এসবিকে ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সোনিয়া বশির কবির, চিকিৎসক ডা. জাহাঙ্গীর কবির, প্রথম আলোর হেড অব ইয়ুথ প্রোগ্রাম মুনির হাসান, ইও বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট মাইক কাজী, টেন মিনিট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা আয়মান সাদিক, নগদের চিফ পাবলিক অ্যাফেয়ার্স অফিসার সোলায়মান সুখন, র্যাংক এফসি প্রোপার্টিজ লিমিটেডের সিইও তানভীর শাহরিয়ার রিমন, দারাজের সিএমও তাজদীন হাসান।

সেশনগুলোয় তারা উদ্যোক্তাদের নানা বিষয়ে পরামর্শ দেন। এমনকি সব বিষয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

উদ্যোগের প্রতিষ্ঠাতা ইকবাল বাহার জাহিদ বলেন, ‘আমরা নিয়মিত প্রশিক্ষণ চালিয়ে যাবো। বিগত সময়ের মতো একদিনের জন্যও বন্ধ থাকবে না এ প্রশিক্ষণের বিশ্ব ইতিহাস। আমরা ইতোমধ্যে বৈশ্বিক স্বীকৃতিও পেয়েছি। কাজ করে যাবো ভবিষ্যতের জন্য।’