https://public-voice24.com/wp-content/uploads/2022/03/favicon.ico-300x300.png
ঢাকামঙ্গলবার , ৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

১০ টাকা কমলো পেঁয়াজের দাম হিলিতে

পাবলিক ভয়েস
মার্চ ১২, ২০২২ ৪:৩১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বেড়েছে পেঁয়াজের আমদানি। ফলে হিলির আড়ত ও খুচরা বাজারে কমেছে পেঁয়াজের দাম। দেড় সপ্তাহের ব্যবধানে ভারতীয় পেঁয়াজের দাম কেজিতে ৫ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ২৫ টাকা দরে। অন্যদিকে কেজিতে ৮-১০ টাকা কমে দেশি পেঁয়াজ বিক্রয় হচ্ছে ৩০-৩২ টাকায়। দাম কমায় খুশি পাইকাররা আর খুচরা ক্রেতাদের মধ্যে ফিরেছে স্বস্তি।

হিলি কাস্টমসের তথ্যমতে, চলতি মাসের শুরু থেকে ৫ মার্চ পর্যন্ত হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে ১২৮টি ট্রাকে ৩ হাজার ৩১৭ টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছিল। ৬ থেকে ১০ মার্চ পর্যন্ত পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে ২০৩ ট্রাকে ৫ হাজার ৭৪৬ টন, যা গত সপ্তাহের চেয়ে ২ হাজার ১২৯ টন বেশি ।

হিলি বাজার ঘুরে জানা গেছে, কাঁচামালের দোকানে ইন্দোর জাতের পেঁয়াজ আগে ৩২ টাকা কেজি বিক্রি হলেও বর্তমানে তা কমে ২৫-২৭ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। নাসিক জাতের পেঁয়াজ ২৯ থেকে ৩০ টাকা, গুজরাট জাতের পেঁয়াজ ৩২ ও নগর জাত ৩২ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

হিলি বাজারের ব্যবসায়ী মিথুন জাগো নিউজকে বলেন, এক সপ্তাহ আগেও বন্দর দিয়ে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির পরিমাণ কম ছিল। এ কারণে পেঁয়াজের দাম একটু বেশি ছিল। সে সময় আমরা প্রকারভেদে ৪০ টাকা দরে বিক্রি করেছি। এখন আমদানি বাড়ায় ওই পেঁয়াজই ২৫-২৮ টাকায় বিক্রি করছি। এভাবে আমদানি বাড়লে আগামীতে দাম আরও কমার সম্ভাবনা রয়েছে।

পেঁয়াজ ক্রেতা সুইট বলেন, প্রতিদিন দাম ওঠানামা করে। আমরা গরিব মানুষ, বেশি কিছু বুঝি না। যত কম দামে পাওয়া যাবে আমাদের জন্য তত ভালো। কিন্তু আমাদের কপালে ভালো খাবার নেই।

জানতে চাইলে হিলি বন্দরের আমদানি-রফতানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশীদ জাগো নিউজকে বলেন, এ মৌসুমে বাজারে দেশীয় মুড়িকাটা পেঁয়াজের সরবরাহ ভালো। দামও ভালো ছিল। কিন্তু এখন ভারতীয় পেঁয়াজের সরবরাহ বেড়ে যাওয়ায় আবারও কমতে শুরু করেছে দাম। সব ঠিক থাকলে সামনের দিন পেঁয়াজের আমদানি আরও বাড়বে এবং দামও কমে আসবে। আসন্ন রমজানে পেঁয়াজের দাম কম থাকবে বলে আশা করছি।