Thursday 29th September 2022

পাবলিক ভয়েস

পৃথিবীর মানুষের জন্য একটি কণ্ঠস্বর

ফরিদপুরের ৭৭ হাজার পরিবার কম দামে তেল-ডাল-চিনি পেলো

মার্চ ২০, ২০২২ by পাবলিক ভয়েস
No Comments

কম দামে ফরিদপুর জেলায় ‘ফ্যামিলি কার্ডে’ টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু হয়েছে। রবিবার (২০ মার্চ) সকালে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার। শহরের কোমরপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বিক্রয় কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়।

এ সময় ফরিদপুর পৌরসভার মেয়র অমিতাভ বোস, ফরিদপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুদুল আলম উপস্থিত ছিলেন। একই সঙ্গে সকাল ১০টায় জেলার সব উপজেলায় এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়। স্ব স্ব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা বিক্রয় কার্যক্রম উদ্বোধন করেন।

আসন্ন পবিত্র রমজান উপলক্ষে দেশব্যাপী নিম্নআয়ের এক কোটি পরিবারের জন্য ভর্তুকি মূল্যে টিসিবির পণ্য বিক্রি করবে সরকার। এর আওতায় ফরিদপুর জেলায় উপকারভোগী হিসেবে ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে ৭৭ হাজার ৬০৫ পরিবারকে তালিকাভুক্ত করা হয়।

করোনাকালে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া দুই হাজার ৫০০ টাকা এবং ভিজিডি ও ভিজিএফের তালিকার ভিত্তিতে ফ্যামিলি কার্ড তৈরি করা হয়েছে।

প্রত্যেককে দুটি কার্ড দেওয়া হয়। এগুলো দিয়ে ১৫ দিন পরপর মাসে দুবার পণ্য কিনতে পারবেন তারা। জেলার ২৬টি স্পটে এসব পণ্য বিক্রি শুরু হয়েছে। ফরিদপুরে টিসিবির ৬২ জন ডিলারের মাধ্যমে প্রতিটি পৌরসভা ও ইউনিয়ন সদরে ৩০ মার্চ পর্যন্ত চলবে পণ্য বিক্রি। কর্মসূচির আওতায় ৪৬০ টাকায় দুই লিটার তেল, দুই কেজি ডাল ও দুই কেজি চিনির একটি প্যাকেজ কিনতে পারছে প্রতিটি পরিবার।

জেলার আলফাডাঙ্গা উপজেলায় উপকারভোগীর সংখ্যা পাঁচ হাজার ১২৬ জন এবং ডিলার তিন জন; ভাঙ্গা উপজেলায় উপকারভোগীর সংখ্যা ১১ হাজার ৩৯০ এবং ডিলার ১৩ জন; বোয়ালমারী উপজেলায় উপকারভোগীর সংখ্যা নয় হাজার ৫০৪ জন এবং ডিলার সাত জন; সদরপুর উপজেলায় উপকারভোগীর সংখ্যা পাঁচ হাজার ৮৩৪ জন এবং ডিলার পাঁচ জন; সালথা উপজেলায় উপকারভোগীর সংখ্যা ছয় হাজার ৪৪৫ জন এবং ডিলার সাত জন; চরভদ্রাসন উপজেলায় উপকারভোগীর সংখ্যা দুই হাজার ৮৪১ জন এবং ডিলার ছয় জন।

এছাড়া মধুখালী উপজেলায় উপকারভোগীর সংখ্যা নয় হাজার ২১৯ জন এবং ডিলার ছয় জন; নগরকান্দা উপজেলায় উপকারভোগীর সংখ্যা আট হাজার ২০৭ জন এবং ডিলার ছয় জন; ফরিদপুর সদর উপজেলায় উপকারভোগীর সংখ্যা ১৯ হাজার ৩৬ জন এবং ডিলার নয় জন।

জেলায় মোট উপকারভোগীর সংখ্যা ৭৭ হাজার ৬০৫ জন এবং মোট ডিলারের সংখ্যা ৬২ জন। জেলায় মোট বিতরণকৃত পণ্যের মধ্যে সয়াবিন তেল এক লাখ ৫৫ হাজার ২০০ লিটার, চিনি এক লাখ ৫৫ হাজার ২০০ মেট্রিক টন এবং মসুর ডাল এক লাখ ৫৫ হাজার ২০০ মেট্রিক টন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.