Thursday 29th September 2022

পাবলিক ভয়েস

পৃথিবীর মানুষের জন্য একটি কণ্ঠস্বর

সিআইডিঃ ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় রোহানকে হত্যা করা হয়

এপ্রিল ৬, ২০২২ by পাবলিক ভয়েস
No Comments

ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় খুলনার ফুলতলার এমএম (মোজাম মহলদার) কলেজের শিক্ষার্থী সৈয়দ আলিফ রোহানকে (২০) হত্যা করা হয়। হত্যায় জড়িত অপর একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। বুধবার (৬ এপ্রিল) দুপুরে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মুক্তা ধর এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান।

গত ৩১ মার্চ নিজ ক্যাম্পাসে খুন হন অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী (সমাজকর্ম) সৈয়দ আলিফ রোহান। এই ঘটনায় নিহতের বাবা সৈয়দ আবু তাহের একটি হত্যা মামলা করেন। মামলায় তাছিন মোড়ল (২২) ও সাব্বির ফারাজীসহ (২৩) এজাহারনামীয় পাঁচ জন এবং অজ্ঞাত আরও চার-পাঁচ জনকে আসামি করা হয়।

মুক্তা ধর বলেন, ‘ঘটনার পর সিআইডি ছায়া তদন্ত শুরু করে। তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে ঘটনার সঙ্গে রি-ইউনিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থী তাছিন মোড়ল (২২) ও সাব্বির ফারাজীসহ (২৩) বেশ কয়েকজনের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়। এরপর মঙ্গলবার ঢাকার আশুলিয়া এলাকার গাজীর চট এলাকা থেকে তাছিন ও সাব্বিরকে গ্রেফতার করা হয়।’

তিনি আরও জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্তরা জানান, ফুলতলার পায়গ্রাম কসবা এলাকায় গত মার্চে রোহানের বাড়ির পাশে ‘রহমানিয়া এলিমেন্টারি স্কুল’ নামে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে তাছিন ও সাব্বির দলবেঁধে যায়। তারা অনুষ্ঠানে গিয়ে বিভিন্ন মেয়েকে উত্ত্যক্ত করে। অনুষ্ঠানে হট্টগোল করতে থাকে। এলাকার অন্য ছেলেদের নিয়ে তাদের এর প্রতিবাদ করে রোহান। তখন তাছিন, সাব্বির ও শান্ত গাজী রোহানকে দেখে নেবে বলে হুমকি দিয়ে যায়। ৩১ মার্চ সকাল সাড়ে ১১টায় এমএম কলেজ মাঠে রোহানকে একা পেয়ে তাছিন ছুরিকাঘাত করে। এ সময় সাব্বিরও সেখানে ছিল।

গুরুতর আহত অবস্থায় কলেজের শিক্ষার্থীরা রোহানকে সিএনজিযোগে দ্রুত ফুলতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। সেখানে নেওয়ার পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.